কবিতা

১৭০০০+

রাজর্ষি চট্টোপাধ্যায়

১।
এই দ্যুতির কাছে জন্মান্ধ বসে আছি
চোখে রোদচশমা
ম্লান হয়ে গেছে
এখানে পাইনের বুক ফোটা আলো
এই কমলার মাথায় মাথায় হেঁটে যাচ্ছে
যতদূর গুম্ফা
যতদূর পবিত্র আমাদের স্নায়ু
যতদূর মণিপদ্মে এসে
বসছে না কোন কীট
তার পরে দংশন
এই দংশনের কাছে বিষ রাখি

২।
বাইরে ক্যাম্পফায়ার জমে উঠেছে
আগুনে আগুন পুড়ে যাচ্ছে
আমি ঘরের ভেতর আলো খুঁজছি
আর একটু আবছায়া
যেখানে তোমার দুচোখের নিচে কালি পড়ে আছে
আমার ভাবতে ভাল লাগছে
কীভাবে নির্জনতাকে অতিক্রম করে যায় পাহাড়
আমাদের অনুশাসনগুলো ভেঙ্গে পড়ে
আমরা আমাদের পবিত্র উপাসনাগৃহ থেকে
তাদের মুক্ত করে দিই
তারা তখন হাওয়ায় হাওয়ায় পাখসাট মেলে
আমার ভাল লাগছে তোমার পায়ের পাতা
তোমার হাতের সুদীর্ঘ আঙ্গুল
তোমার কপালে চাঁদের ওপর চাঁদ এসে বসেছে
আমি দেখছি দূর থেকে
যত দূর থেকে আমি দেখতে পারি
আমার দেখাগুলো পারা হয়ে ওঠে