কবিতা

২টি কবিতা

শৌভিক দে সরকার

চিলেকোঠার সেপাই

সন্দেহবাতিক দু একটি চরাচর। আর প্রবণতাপ্রিয় জিভটির কথা ভেবে আমিও অতীতের দিকে ঝুঁকে পড়লাম। মধ্যপ্রাণ,তাপ ও খরবায়ু।খুব গূঢ় একটি চটির স্ট্র্যাপ আর স্খলিত আঙুল। চিহ্নিত করলাম আসক্তির অন্যদিকে ঝুলে থাকা একটি মৃত কাক,একটি দীর্ঘস্থায়ী তার, রৌদ্রপরবশ ডানার তাৎপর্য, পরিনাম।এইসব চরাচর ও মেঘবর্ণ অতীতের ওপর লেহনের শর্ত আর শিরাবিহীন দিকচিহ্নগুলি চাপিয়ে দিলাম।সিঁড়ির কাছাকাছি মুখ নিয়ে দেখলাম তোমার আকার,বধ্যরেখার দিকে ঘুরে যাওয়া রসাতল,সর্বস্ব নীলিমা আর অন্য একটি জৈব ধর্ম।


তক্ষক

গহনের আলো,ভর্তি হল সামান্য জরির পাখসাট।প্রাতরাশ ডিঙ্গিয়ে ছুটে এল নভতল,মশলার অগম্য উত্তাপ।তোমার গা ভর্তি গহন!প্রশ্নের আঁচ আর জলচর একটি পায়ের নীচে দীর্ঘ চাপর।ডুবে যাওয়ার প্রস্তাবনা,স্তনের স্ফীতি,একটি ঘ্রাণের নীচে অন্য একটি ঘ্রাণ।আমি জলের রেখাগুলি গুনতে শুরু করলাম।গ্রাস ও গ্রহনের মত তর্কাতীত মেঘ,শোলার গ্রহানু।পাশ ফিরে থাকা প্রতিমার দেহকান্ড আর শ্যাওলার কারখানা।